Uncategorized

আইপিএল নতুন দুই দল ২০২২। Two new teams in IPL |

আইপিএল নতুন দুই দল ২০২২। Two new teams in IPL 2022.

আইপিএল 2022 নতুন দল। সমস্ত জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড আইপিএল 2022-এর জন্য দুটি নতুন দলের নাম ঘোষণা করেছে৷ দুটি নতুন দলের মধ্যে একটি হল লখনউ এবং অন্যটি আহমেদাবাদ৷ লখনৌরে নতুন দলের মালিক সঞ্জীব গোয়েস্কর। অন্য দলটি হল আহমেদাবাদ-ভিত্তিক সিপিসি ক্যাপিটালস। তারা দলের মালিকানা পেতে 5,200 কোটি রুপি বিড করেছে।

 

আইপিএল 2022-এর নতুন দল লখনউ ইতিমধ্যেই দল সাজানো শুরু করেছে। জিম্বাবুয়ের প্রাক্তন তারকা অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারকে প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে লখনউ। প্রধান কোচ অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারের সঙ্গে বোলিং কোচ হবেন প্রাক্তন ভারতীয় ফাস্ট বোলার আশিস নেহরা। এছাড়াও দলের অন্যতম হাইলাইট হলেন কেকেআর-এর অন্যতম সফল অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর। যিনি লখনউ দলের প্রধান মেন্টর হিসেবে কাজ করবেন। তবে এবার আইপিএলের নতুন দল, লখনউ রিলিজ প্লেয়ার দলে অন্তর্ভুক্ত হয়ে সবচেয়ে চমক দেখিয়েছে।

আইপিএল 2022-এ নতুন নিয়ম

আইপিএল 2022-এর নতুন নিয়ম অনুসারে, মেগা ড্রাফটের আগে, প্রতিটি দল চারজন খেলোয়াড়কে দলে অন্তর্ভুক্ত করতে পারবে, যাদের মধ্যে তিনজন ভারতীয় এবং একজন বিদেশী হবেন। আর এবার আইপিএল 2022 লখনউয়ের নতুন দল সেই সুযোগকে সবচেয়ে ভালোভাবে ব্যবহার করেছে। ১৬ কোটি রুপিতে ভারতীয় ওপেনার কেএল রাহুলকে দলে নিয়েছে তারা। ৯ কোটি রুপিতে ইশান কিষাণকেও দলে নিয়েছে তারা। আর বিদেশি কোটায় আছেন বিশ্বের সেরা লেগ স্পিনার রশিদ খান। আফগানিস্তানের তারকা লেগ স্পিনার রশিদ খানকে কিনতে ১৩ কোটি টাকা খরচ করেছে তারা।

আইপিএল 2022-এর দুটি নতুন দল হল লাখনৌ এবং আহমেদাবাদ

মালিক: সঞ্জীব গোয়েস্করপ্রধান কোচ: অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারবোলিং কোচ: আশিস নেহরাপ্রধান পরামর্শদাতা: গৌতম গম্ভীর

খেলোয়াড়:

কেএল রাহুলইশান কিষাণরশিদ খান

এক নজরে 2022 আইপিএল দল

1. মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

2. চেন্নাই সুপার কিংস

3. দিল্লি ক্যাপিটালস

4. সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ

5. কলকাতা নাইট রাইডার্স

6. রাজস্থান রয়্যালস

6. রয়্যাল চ্যালেঞ্জার ব্যাঙ্গালোর

6. কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব

9. লাখনৌ

10. আহমেদাবাদ

IPL 2022- কটা গ্রুপ থাকবে, প্রতিটি দলকে কতগুলি ম্যাচ খেলতে হবে?

আইপিএল-এর নতুন দু’টি দল আসতে চাচ্ছে দাবাদ এবং লখনউ থেকে। আমদাবাদ পেয়েছে সিভিসি ক্যাপিটাল। লখনউ পেয়েছে আরপিজি গ্রুপ। দলের নাম এবং বাকি তথ্য  ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে । এই প্রথম নয়, এর আগে দশ দলের আইপিএল হয়েছে। ২০১১ মরসুমে এখনকার আটটি দলের পাশাপাশি কোচি টাস্কার্স কেরল এবং পুনে ওয়ারিয়র্স ইন্ডিয়াকে নেওয়া হয়। কিন্তু সেই মরসুমের শেষেই বোর্ডের নিয়ম লঙ্ঘন করায় সরে দাঁড়াতে হয় কোচিকে। ২০১৩ সালে বোর্ডের সঙ্গে আর্থিক বিবাদের জেরে জানা জানি হয়ে যায় পুনেও। তখন থেকেই আট দলের প্রতিযোগিতা হয়ে আসছে। এ বার থেকে ফের তা দশ দলের হতে চলেছে।

এই দশ দলের আইপিএল হওয়ার জন্য বিশ কিছু বিষয়ে পরিবর্তন দেখা যেতে পারে। প্রথমত খেলার সংখ্যা বাড়তে চলেছে। এবং খেলার নিয়মেও বেশ কিছু বদল দেখা যেতে পারে বলে জানা গেছে । বলা যেতে পারে নতুন দুই দল আইপিএল-কে বদলে দিতে বড় ভূমিকা পালন করতে চলেছে। আট দলের আইপিএল-এ এখন পর্যন্ত ৬০টি করে ম্যাচ খেলা হয়, কিন্তু এবার থেকে প্রতি আইপিএল-এ ৭৪টি করে ম্যাচ দেখা যাবে। অর্থাৎ ম্যাচের পরিধি বাড়তে চলেছে। প্রত্যেকটা দল সাতটা হোম ম্যাচ ও সাতটি অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলতে পারে। এর মানে টুর্নামেন্টটি ২০১১ সালে ব্যবহৃত ফর্ম্যাটে ফিরে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

১০ টি দলকে দুটি গ্রুপে বিভক্ত করা হয়েছিল। এবং প্রতিটি গ্রুপে ছিল পাঁচটি করে দল। কিন্তু একটি একত্রিত পয়েন্ট টেবিলে র‌্যাঙ্ক করা হয়েছিল। প্রতিটি দল তাদের গ্রুপে অন্য চারটি হোম এবং অ্যাওয়ে (আটটি ম্যাচ) খেলেছে, অন্য গ্রুপের চারটি দল একবার করে চারটি হোম এবং অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে। শেষবার আইপিএলে আটটির বেশি দল খেলেছিল ২০১৩ সালে এবং তখন নয়টি দল অংশ নিয়েছিল টুর্নামেন্টে এবং সেই সময় টুর্নামেন্টে মোট ৭৬ টি ম্যাচ খেলা হয়েছিল।

৮টা টিম থেকে ১০টা টিম হয়ে যাওয়ায় দল গোছানো নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে। সঞ্জীব গোয়েঙ্কা অবশ্য বলছেন, ‘বিসিসিআই যে এ ব্যাপারে অন্য টিমগুলোর সঙ্গে আমাদের একই রকম সুযোগ সুবিধা দেবে, এ নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টসের সময়ও কিন্তু ব্র্যান্ডিংয়ের ব্যাপারে কোনও কার্পণ্য রাখেনি বোর্ড। এ বারও তাই হবে।’

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.