তথ্য

আপনি কি নতুন ভোটার হতে চান ? razuaman.com

ভোটার তালিকা হালনাগাদ একটি চলমান প্রক্রিয়া। যিনি বাংলাদেশের নাগরিক, সচরাচর কোন এলাকায় বসবাস করেন কিন্তু এখনও ভোটার হিসেবে নিবন্ধিত হননি এবং আপনার বয়স যদি  ১৮ বছর হয়ে থাকে তাহলে সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে আপনার এলাকার সিডিউল মোতাবেক ফরম-২ পূরণ করে ভোটার হোন । ভোটার হওয়ার সময় আপনার কিছু সংযুক্ত কাগজপত্র প্রয়োজন হবে,  যা নিন্মরুপ-

• এস.এস.সি সনদ -(বয়স প্রমানের সনদ)
• জন্ম নিবন্ধন -(বয়স প্রমানের সনদ)
• পাসপোর্ট / ড্রাইভিং লাইসেন্স / টি.আই.এন -(বয়স প্রমানের সনদ)
• ইউটিলিটি বিলের কপি/বাড়ী ভাড়ার রশিদ/হোল্ডিং ট্যাক্স রশিদ – (ঐ এলাকায় সচরাচর বসবাস করেন এরুপ কোন প্রমান)
• নাগরিকত্বের সনদ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
• বাবা, মা, স্বামী/স্ত্রীর আই.ডি কার্ডের কপি(প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।

ক)  অনলাইন ভোটার নিবন্ধন পদ্ধতি :

  • অনলাইন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি সঠিকভাবে ভোটার রেজিষ্ট্রেশন ফর্ম পূরণ করতে পারবেন)
  • আপনি ইতোমধ্যে ভোটার হয়ে থাকলে পুনরায় আবেদন করার প্রয়োজন নেই। নিবন্ধিত ব্যাক্তি পুনরায় আবেদন করলে সেটি দন্ডনীয় অপরাধ
  • নতুন ১৮ বয়সের অধিক, প্রবাসী বা বাদপড়া ভোটারগণ এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিবন্ধন করতে পারবেন

খ। ধাপসমূহঃ

  • ধাপে ধাপে সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করুন
  • নিজের পূর্ণনাম ছাড়া সকল তথ্য বাংলায় ইউনিকোডে পুরণ করুন
  • সকল ধাপ সম্পন্ন হবার পরে প্রিভিউএর মাধ্যমে সকল তথ্য পুনর্বার যাচাই করে নিন
  • পিডিএফ ফাইল তৈরি করে সেটি প্রিন্ট করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ নিকটস্থ নির্বাচন অফিসে জমা দিন
  • আপনার প্রদত্ত তথ্যাদি যাচাই এবং ঠিকানা যাচাইয়ের পরে তথ্যাদি সঠিক নিশ্চিত হলে আপনার কার্ড তৈরি হবে
  • কার্ডের রশিদ জমা দিয়ে কার্ড সংগ্রহ করুন

অনলাইনে ভোটার হতে চাইলে 

লাইনে দাঁড়িয়ে ভোটার হওয়ার দিন শেষ। এখন থেকে ভোটার হওয়া যাবে অনলাইনে। বুধবার থেকে এ সেবা চালু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।
নতুন ভোটার হিসেবে নিবন্ধন করতে চাইলে নির্বাচন কমিশনের http://services.nidw.gov.bdএই ঠিকানায় লগ অন করতে হবে। এরপর ফরম ডাউনলোড ক্যাটাগরিতে ক্লিক করে ফরমটি ডাউনলোড করে ভালভাবে পূরণ করতে হবে।
কেউ ইতোমধ্যে ভোটার হয়ে থাকলে পুনরায় আবেদন করার প্রয়োজন নেই। নিবন্ধিত ব্যক্তি পুনরায় আবেদন করলে তা দন্ডনীয় অপরাধ বলে গণ্য হবে।
নতুন ১৮ বয়সের অধিক, প্রবাসী বা বাদপড়া ভোটারগণ এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিবন্ধন করতে পারবেন।
যা যা লাগবে…
• এসএসসি সনদ – (বয়স প্রমানের সনদ)
• জন্ম নিবন্ধন – (বয়স প্রমানের সনদ)
• পাসপোর্ট / ড্রাইভিং লাইসেন্স / টি.আই.এন – (বয়স প্রমানের সনদ)
• ইউটিলিটি বিলের কপি/বাড়ী ভাড়ার রশিদ/হোল্ডিং ট্যাক্স রশিদ – (ঐ এলাকায় সচরাচর বসবাস করেন এরূপ কোন প্রমান)
• নাগরিকত্বের সনদ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
• বাবা, মা, স্বামী/স্ত্রীর আই.ডি কার্ডের কপি (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)

যে ভাবে ফরম পূরণ করবেন…

১. ধাপে ধাপে সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।
২. নিজের পূর্ণ নাম ছাড়া সকল তথ্য বাংলায় ইউনিকোডে পূরণ করতে হবে।
৩. সকল ধাপ সম্পন্ন হবার পরে প্রিভিউ এর মাধ্যমে সকল তথ্য পুনরায় যাচাই করে নিতে হবে।
৪. পিডিএফ ফাইল তৈরি করে সেটি প্রিন্ট করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ নিকটস্থ নির্বাচন অফিসে জমা দিতে হবে।
৫. আপনার প্রদত্ত তথ্যাদি যাচাই এবং ঠিকানা যাচাইয়ের পরে তথ্যাদি সঠিক নিশ্চিত হলে আপনার কার্ড তৈরি হবে।
৬. কার্ডের রশিদ জমা দিয়ে কার্ড সংগ্রহ করতে হবে।
প্রয়োজনীয় তথ্য
ফরম পূরণের আগে সকল তথ্য সাথে রাখুন ফরমের সাথে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের কপি জমা দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.