চিকিৎসা

কিডনি সুস্থ করতে পারে যেসব খাবার ! পচে যাওয়া কিডনিও ভালো হবে যা খেলে |Foods for Healthy Kidney

একদম নষ্ট করে দেবে পৌঁছে যাবে আপনার কিছুদিন কিন্তু আপনি বুঝতে পারবেন না । যে আপনার কিডনি ভেতরে ভেতরে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে কারণ । কিডনি রোগ সব সময় নীরব ঘাতক’ আপনার কিডনি একদম নষ্ট হয়ে যাওয়ার পরে আপনার শরীরের উপসর্গ দেখা দেবে । কারণ প্রাথমিকভাবে উপসর্গগুলো দেখা যায়নি তা বেশিরভাগ মানুষই ধরতে পারেন না এইজন্যই বন্ধু আপনাকে বলছি।

আজকের এই পোস্টটি দেখেই এই সকল খাবার অভ্যাস একেবারে বাদ দিয়ে দিন । যেসব খাবার অভ্যাস গুলো আপনার কিডনিকে ভেতরে ভেতরে একদম পচিয়ে ফেলবে নষ্ট করে ফেলবে । সেই সাথে আরও দশটি খাবারের নাম বলব যে দশটি খাবার আপনার কিডনিকে সবসময় ভালো রাখতে একদম ঘরের খাবার শুধুমাত্র আমরা না জানার কারণে এবং একই খাবার ভুলভাবে খাওয়ার জন্য ।

আমাদের কিডনি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে তাহলে চলুন বন্ধু পোস্টটি শুরু করি আর খুব মনোযোগ দিয়ে জানতে থাকি । যে কি করা যাবে কিডনি ভালো রাখতে কি কি কাজ কখনই করা যাবে না । কোন কোন খাবার কখনোই খাওয়া যাবে না যে দশটি খাবার আপনি খাবেন কিডনি ভালো রাখতে তার মধ্যে প্রথমেই বলব পেঁয়াজের কথা কাঁচা পেঁয়াজ খেতে হবে ।

প্রতিদিন অন্তত একটি থেকে দুইটি মাঝারি আকৃতির একটি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের জন্য বলছি ছোট খেতে পারেন। তবে পরিমাণে আছে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে যা রক্তের চর্বি দূর করে এবং কিডনি সুস্থ রাখে এছাড়া পেঁয়াজের পটাশিয়াম ও প্রোটিন কিডনির জন্য বেশ উপকারী এরপরে আছে কাঁচা রসুন অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি দেহকে সুস্থ পাশাপাশি কিডনি ভালো রাখে এবং একই রক্তের কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে ।

এছাড়া অনুষ্ঠানে উপাদান রয়েছে তার শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী এরপরে আছে আপেল আপেল রান্না করিবা নিষিদ্ধ করে একদম ছোট শিশুকে খাওয়ানো যেতে পারে । 6 মাস পরবর্তী থেকে শুরু করে বৃদ্ধ বয়স পর্যন্ত প্রতিদিন একটি করে আপেল খেতে পারেন । এতে করে আপনার কিডনি সবসময় সুস্থ থাকবেন ডিমের সাদা অংশ কিডনির জন্য খুবই ভালো প্রতিদিন একটি ডিমের সাদা অংশ খেতে পারেন

আপনার বয়স ওজন এবং উচ্চতা অনুযায়ী এছাড়া একটি টিম কুসুমসহ অবশ্যই খেতে পারেন এতে করে আপনার দেহের কোন ক্ষতি হবে না। আরেকটা খাবার হচ্ছে দারুচিনি দারুচিনি কিডনি ফাংশন এর উন্নতি ঘটায় প্রতিদিন 1 ইঞ্চি পরিমাণ দারুচিনি খেলে আপনার কিডনি ভালো থাকবেন । এছাড়া আছে চেরি চেরি ফল নিশ্চয় সকলেই চ্যালেন লাল চেরি এটি আপনার কিডনিকে সব সময় ভালো রাখার কাজ করবেন ।

কিডনি ফাংশন এর উন্নতি ঘটাবে কারণ এর মধ্যে যে ভিটামিন সি ভিটামিন কে এবং ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে । তার প্রবেশ করার পরে কিডনির জন্য কাজ করে এর পরে আছে মাছের নাম সবসময় চেষ্টা করবেন । যে দেশে আছেন সেই দেশের টাটকা দেশি মাছ খাওয়ার জন্য বরফ বেশিদিন ফ্রজেন থাকে যে মাছগুলো এই মাছগুলো কখনোই দেহের জন্য ভালো নয় । আবার অনেকেই চাষের মাছ খেয়ে থাকেন চাষ করার এমন কিছু পদ্ধতি রয়েছে যে মাছ 20 যুক্ত হয়ে যায় এই ধরনের মাছগুলো দেহের জন্য একেবারেই ভালো নয় ।

এছাড়া ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড কিডনির জন্য ভালো এবং মাছের প্রোটিন দেহের জন্য স্বাস্থ্যকর আরেকটি খাবার আছে বাঁধাকপি বাঁধাকপিতে ভিটামিন-বি ভিটামিন-সি ফাইবার ও ফলিক এসিড রয়েছে তা কিডনি ফাংশন এর উন্নতি ঘটায় তবে এক্ষেত্রে বিক্ষোভ করে রান্না করে নয় বরং ভাপে সেদ্ধ করে অর্থাৎ টিম করে খেতে হবে বাঁধাকপির সম্পূর্ণ উপকার পাওয়া যাবে । যেমন আপনি রসুন খাবেন কিন্তু কখনোই আপনি ভাজা রসুন বা তরকারিতে দেওয়া রসুন খেলে উপকার পাবেন না ।

এজন্য আপনাকে প্রতিদিন এক থেকে দুই কোয়া কাঁচা রসুন খেতে হবে । যেমন দারুচিনির ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য যদি আপনি রান্নায় গরম অসম্ভবে দারুচিনির ব্যবহার করেন । তবে দারুচিনি আপনার দেহের কোন উপকার করবে না গরম পানিতে ফুটিয়ে সেই পানি খেতে পারেন। অথবা সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি দারুচিনি গুঁড়ো করে অল্প পরিমাণ দুধের সাথে অথবা পানির সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন ।

আর একটি খাবার আছে ক্যাপসিকাম ক্যাপসিকাম খেতে পারেন কিডনি সুস্থ রাখতে কারণ এতে যে খাদ্যগুণ রয়েছে তা কিডনির জন্য খুবই উপকারী । এবং পাকা কলা পাকা কলা হচ্ছে যে গুণ সম্পন্ন নির্দেশে পটাশিয়াম রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করতে হবে  । ন্যূনতম তিন লিটার পানি পানের চেষ্টা করবেন কিন্তু বন্ধু এই যে খাবারের নাম গুলো বললাম এগুলো আপনি খাবেন । কিডনি সুস্থ রাখতে কিন্তু আপনার যদি কিডনি রোগ ধরা পড়ে তখন কিন্তু এই খাবারগুলো আপনার জন্য একই নিয়মে প্রযোজ্য নয় ।

কারণ আপনার কিডনি রোগ ধরা পড়লে আপনি তিন লিটার পানি পান করতে কখনোই পারবেন না যেমন পারবেন না প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রাকৃতিক কারণ মাছে প্রোটিন তখন আপনার কিডনির জন্য সেটি স্বাস্থ্যকর হবে না । তেমনি প্রতিটি খাবার যেমন বলার চেয়ে পটাশিয়াম একজন কিডনি রোগী কলারের পটাশিয়াম সহ্য করতে পারবেন না ।  কিন্তু বন্ধু যদি আপনার কিডনি রোগ না হয়ে থাকে এখনো কিডনি সুস্থ থাকেন ।

তাহলে আজীবন কিডনি ভালো রাখতে এই খাবারগুলো খেতে থাকুন যাতে কখনোই আপনার কি যিনা হয় এভাবে আমরা বলবো যে কোন খাবারগুলো খাওয়া কারণেই আপনি কি জিনিস ওকে আক্রান্ত হচ্ছেন বা হতে পারেন । ভবিষ্যতে এবং কি কি বদ অভ্যাসের জন্য একজন মানুষের কিডনি রোগ হয় যত স্বাস্থ্যকর খাবার ই হোক না কেন অতিরিক্ত দেহের জন্য ভালো নয় । কিডনি সুস্থ রাখার জন্য একই কথাই বলতে হবে মাছের প্রোটিন শরীরের জন্য অর্থাৎ কিডনির জন্য উপকারী কিন্তু আপনার দেহের ওজন অনুযায়ী ঠিক করতে হবে ।

আপনি প্রতিদিন কতটুকু মাছ খাবেন আপনার দেহের ওজন যদি 60 কেজি হয় তাহলে আপনি প্রতিদিন 60 গ্রাম প্রোটিন খাবেন আবার যদি আপনি মাংস খেতে চান তাহলে অবশ্যই চর্বিহীন মাংস খেতে হবে লাল মাংস খাওয়াতে এর জন্য ক্ষতিকর হলেও আপনি সপ্তাহে একদিন চর্বিহীন লাল মাংস খেতে পারেন যদি আপনার আগে থেকে কিডনি রোগ না থাকে এক্ষেত্রে আপনি প্রাপ্তবয়স্ক হলে 50 গ্রামের মাংস খাবে তা যদি মুরগির মাংস হয় তাহলে 100 গ্রাম পরিমাণ খেতে পারেন ।

এবং পটাশিয়াম অক্সাইড এবং ক্যালসিয়াম দেহের জন্য খুবই উপকারী কিন্তু এই খাবারগুলো আপনার কিডনি রোগ অর্থাৎ কিডনিতে পাথর তৈরি করছে বেশি পরিমাণে খাবার দেহের জন্য এবং কিডনির জন্য অতিরিক্ত ক্ষতিকর খুব সাধারন একটি ফল কামরাঙ্গা কিন্তু কামরাঙ্গাতে এত পরিমান অক্সালেট রয়েছে যা আপনার জীবনকে নষ্ট করে দিতে পারে তেমনি অতিরিক্ত অক্সালেট জাতীয় যে ধরনের বাক্য রয়েছে অতিরিক্ত অক্সালেট আবার রয়েছে অতিরিক্ত অক্সালেট যারা কাঁচা ছোলা অঙ্কুরিত ছোলা খেতে পছন্দ করেন ।

তারা প্রতিদিন এক মুঠো পরিমাণের বেশি করে খাবেন না কারণ এগুলো আপনার দেহের জন্য অতিরিক্ত খাওয়া ক্ষতিকর কিডনি ধীরে ধীরে পৌঁছে যেতে পারে নষ্ট হয়ে যেতে পারে ভিতরে এবং কিডনিতে পাথর জমবে পারে পানির বোতলে কখনোই কোমল পানীয় অর্থাৎ বোতলজাত যেসব জিনিস পাওয়া যায় সেসব কখনোই করবেন না এটি কিসের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর দেহের জন্য উপকারী কিন্তু কখনোই দৈনিক 1 চা চামচের বেশি লবণ খাবেন না ।

যেকোনো ধরনের খাবারের সাথে তরকারির সাথে অথবা যে কোন ভাবেই আপনি লবণ খান না কেন প্রতিদিন যেন ঘরে এসি বেসি না হয় দেহের জন্য উপকারী কিন্তু বাদাম আপনাকে সবসময় ভিজিয়ে খেতে হবে অন্তত ছয় থেকে সাত ঘণ্টা পরেই ভেজানো বাদাম আপনি খেতে পারবেন যদিও বাদাম খাওয়ার নির্দিষ্ট মাপ রয়েছে সব ধরনের বাধা পেরিয়ে একমুঠো পরিমাণ খেতে পারবেন ।

যেকোনো বাদামেই থেকে চারটি বেশি নয় এক্ষেত্রে চিনাবাদাম 10 থেকে 12 টি খেতে পারেন কিন্তু কখনোই বাজা বাজা বিশেষত লবণ দেওয়া ভাজা বাদাম খাবেন না এটি আপনার কিডনিকে একদম নষ্ট করে দেবে আপনি বুঝতে পারবেন না যে আপনার কি এর ভিতরে কি অবস্থা হচ্ছে অতিরিক্ত চা বা কফি পান করবেন চা-কফি অক্সালেট রয়েছে তাদের জন্য ক্ষতিকর আবার অতিরিক্ত প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার ও কিডনির জন্য ক্ষতিকর এবং জাতীয় ।

যে সমস্ত খাবার রয়েছে যেগুলো আপনার কিডনির জন্য ক্ষতিকর কখনোই এগুলো মেয়াদে খাওয়া উচিত নয় খারাপের মধ্যে যেগুলো আপনার কিডনিকে একদম নষ্ট করে দেবে তার মধ্যে আছে এন্ড্রয়েড বা গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ গুলো আমরা কি এই ওষুধ দীর্ঘমেয়াদে খাওয়া এবং যেকোন ব্যথানাশক ঔষধের মেয়াদ খাওয়া এগুলো ধীরে ধীরে পিকনিকে একদম নষ্ট করে দেয় এ ছাড়া ধূমপান এবং মদ্যপান দেহের জন্য এবং কিডনির জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর এই ধরনের অভ্যাস গুলো বাদ দিতে হবে এবং দীর্ঘক্ষন অর্থাৎ সবচেয়ে বেশি আপনার কিডনিকে নষ্ট করে দেবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.