গ্যাস সিলিন্ডার

গ্যাস সিলিন্ডার দুর্ঘটনা রোধে করণীয়-গ্যাস সিলিন্ডার দুর্ঘটনা রোধে সতর্ক হোন

গ্যাস সিলিন্ডার দুর্ঘটনা রোধ করার জন্য আমাদের যা করতে হবে তা হল রান্নার শেষে চুলা এবং এলপিজি সিলিন্ডার নিয়ন্ত্রক বন্ধ করা। চুলার পাশে সিলিন্ডার রাখবেন না বা আগুন লাগাবেন না। এটি একটি বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে। আপনি যদি ঘরে গ্যাসের গন্ধ পান, তাড়াতাড়ি দরজা -জানালা খুলে এলপিজি সিলিন্ডারের নিয়ন্ত্রক বন্ধ করুন। এলপিজি সিলিন্ডার চুলা থেকে দূরে একটি ভাল-বায়ুচলাচল স্থানে রাখুন।রান্না শুরু করার আধা ঘন্টা আগে রান্নাঘরের দরজা এবং জানালা খুলুন। রান্নাঘরের উপরে এবং নীচে ভেন্টিলেটর রাখুন।

আপনি যদি গ্যাসের গন্ধ পান, মেলা কাঠি জ্বালাবেন না, বৈদ্যুতিক সুইচ এবং মোবাইল ফোন চালু করবেন না। চুলা সিলিন্ডারের নিচে রাখবেন না। কমপক্ষে 6 ইঞ্চি উপরে রাখুন। দেশে এলপি গ্যাসের ব্যবহার বৃদ্ধির পাশাপাশি গ্যাস সিলিন্ডার দুর্ঘটনা বৃদ্ধির প্রধান কারণ এর ব্যবহারকারীদের অসচেতনতা। জানা গেছে ত্রুটিপূর্ণ গ্যাস সিলিন্ডারের কারণেও অনেক দুর্ঘটনা ঘটছে। ত্রুটিপূর্ণ গ্যাস সিলিন্ডারের কারণে যানবাহনে দুর্ঘটনার বিষয়টিও আলোচিত।
লক্ষ করার বিষয় হল, গ্রামের স্বল্পশিক্ষিত ও অশিক্ষিত মানুষও এখন এলপি গ্যাস ব্যবহার করছেন। এ গ্যাস ব্যবহারকারীরা বিশেষভাবে সতর্ক না থাকলে যে কোনো সময় দুর্ঘটনার আশঙ্কা থেকে যায়। ইতিমধ্যে বিক্রির জন্য দোকানে মজুদ থাকা অবস্থায়ও গ্যাস সিলিন্ডারের দুর্ঘটনা ঘটেছে।

একজন বিক্রেতার গ্যাস সিলিন্ডার সংরক্ষণের নিয়ম সম্পর্কে জ্ঞানের সীমাবদ্ধতা থেকে ধারণা করা যায়, গ্রামের স্বল্পশিক্ষিত ও অশিক্ষিত মানুষ, যারা নিয়মিত এলপি গ্যাস ব্যবহার করছেন, তাদের অনেকেই হয়তো গ্যাস সিলিন্ডার সংরক্ষণ ও এর ব্যবহারের গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানেন না।

কাজেই এসব ব্যবহারকারীকে গ্যাস সিলিন্ডার সংরক্ষণ ও ব্যবহারের নিয়মাবলি বিস্তারিত জানানোর জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। কোনো অসাধু ব্যবসায়ী নিুমানের গ্যাস সিলিন্ডার বাজারজাত করার সুযোগ যাতে না পায় এটাও নিশ্চিত করা দরকার। কারণ সাধারণ গ্রাহকের পক্ষে জানা সম্ভব নয় যথাযথ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সিলিন্ডারে গ্যাস ভরা হয়েছে কিনা। এ ধরনের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকেই নিশ্চিত করতে হবে।

প্রাথমিকভাবে সারা দেশের এলপি গ্যাসের সব গ্রাহককে উল্লিখিত বিষয়ে সচেতন করার কাজটি সহজ নয়। কিন্তু যেসব খুচরা ব্যবসায়ী গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত, তাদের গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের বিস্তারিত তথ্য জানানোর পদক্ষেপ নেয়া কঠিন কোনো কাজ নয়। উল্লিখিত তথ্য খুচরা ব্যবসায়ীদের যথাযথভাবে জানানো হলে পরে তারাই সাধারণ গ্রাহককে জানাতে পারবেন। কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে যথাযথ উদ্যোগ নেবে, এটাই কাম্য।

আরো পড়ুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.