রূপচর্চা

চুলে জট হয় কেন ছাড়ানোর সঠিক উপায় কি-2022

চুল যত সুন্দরই হোক না কেন, জট লাগবেই! আর শুষ্ক-রুক্ষ চুল হলেতো কথাই নেই, যুদ্ধ তখন মহাযুদ্ধে পরিণত হয়। প্রতিবার চুল আঁচড়াতে গেলেই ছিঁড়ে যায় একরাশ চুল। অনেকে হয়তো চুলের জট ছাড়াতে গিয়ে মেজাজ বিগড়ে ফেলেন। আর তার ফলাফলস্বরূপ ইচ্ছে করেই ছিঁড়ে ফেলেন নিজের প্রিয় চুলের গোছা! তবে কিছু টিপস আছে চুলে জট ছাড়ানোর। চলুন জেনে নেই ঝটপট।চুল পড়ার মহৌষধ, চাল ধোয়া পানি!
১. চুলের আগা নিয়মিত ছেঁটে রাখলে জট লাগে না। এছাড়া আপনার চুলের আগা যদি ফেটে গিয়ে থাকে, তাহলে ছেঁটে দিলে আগা ফাটা ও জট লাগা দু’টোই সামলানো যাবে।

২. প্রতিবার শ্যাম্পু করার পর চুলে কন্ডিশনার লাগান। এতে চুল মসৃণ ও নরম থাকবে, জট লাগাও প্রতিরোধ করবে।

৩. কুসুম গরম তেল নিয়মিত চুলে লাগানোর চেষ্টা করুন। এরপর শাওয়ার ক্যাপ বা উষ্ণ তোয়ালে দিয়ে ঢেকে রাখুন গোসলের আগ পর্যন্ত। এটা ডিপ কন্ডিশনিং এর কাজ করে। চুলের কিউটিকলের পরিচর্যাও করে এবং চুলের রুক্ষতা কমিয়ে চুলকে করে তোলে নমনীয়। মসৃণ চুলে তাই জট লাগে না।

৪. জট বাঁধলে চিরুনি বা ব্রাশের বদলে আঙুল দিয়ে ছাড়ানোর চেষ্টা করুন। আঙুল দিয়ে বিলি কেটে কেটে জট ছাড়িয়ে এরপর চিরুনি ব্যবহার করুন।

৫. বড় দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ানোর অভ্যাস করুন। এতে চুল ছিঁড়ে যাবার আশংকা কম। তাছাড়া প্লাস্টিকের বদলে প্রাকৃতিক উপাদান যেমন কাঠের তৈরি চিরুনি হলে আরও ভালো হয়। আর মনে রাখবেন, ভেজা চুল কখনই আঁচড়াবেন না। কারণ তা নরম থাকে আর ছিঁড়ে যায়।

৬. জট ছাড়াতে জটের নিচের দিক থেকে শুরু করুন। কখনওই জট খুলতে চুলের দু’টি অংশ দু’দিক থেকে টান দেবেন না।

৭. শ্যাম্পু করার পর চুল আঁচড়ানোর আগে হেয়ার সিরাম ব্যবহার করুন। এটি চুলকে করে তোলে নরম ও মসৃণ। তাই জট ছাড়াতে তা খুব ভালো সাহায্য করে।

৮. ঘুমনোর সময় আমরা প্রায় সবাই-ই সুতি কাপড়ের বালিশের কভার ব্যবহার করি। কিন্তু সুতি কাপড় আমাদের চুল থেকে আর্দ্রতা শুষে নিয়ে রুক্ষ করে ফেলে এবং চুলে স্থির বিদ্যুৎ তৈরি করে। এতে করে চুলে রুক্ষতা তৈরি হয়ে জট লাগার প্রবণতা বাড়ে। কিন্তু সিল্কের কাপড়ে সে সমস্যা হয় না।

৯. সবসময় যে খোলা চুলেই শ্যাম্পু করতে হবে, এমন কোন কথা নেই। বরং বেণী করে চুলে শ্যাম্পু করলে ধীরে ধীরে বেণী খুলে আসে ধোয়ার সময়। যা মূলত ভেজা চুলের জট পাকানো থেকে রক্ষা করে।|

১০. সবসময় চুল বেঁধে রাখলেও কিন্তু তাতে জট বাঁধে। কাজেই বাড়িতে যখন থাকবেন, চেষ্টা করুন চুল খুলে রাখার। আর নিয়মিত চুল পরিষ্কার করে আঁচড়ে রাখুন। অবাধ্য চুলকে বশে আনার জন্য পরিচ্ছন্নতার কোন বিকল্প নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.