চিকিৎসা

দাঁতের ব্যথা কমানোর উপায়-razuaman.com

দাঁতের ব্যথা সবসময়ই কষ্টকর। তবে আক্কেল দাঁতের ব্যথায় বেশ কয়েকদিন ভুগতে হয়। আক্কেল দাঁতে ব্যথা হলে অসহ্য যন্ত্রণায় জ্বরসহ গলা, কানে ব্যথাসহ গিলতে অসুবিধা হয়।  আমরা দাঁতের ব্যথার জন্য  খাইতে পারি না আর একটা মানুষ না খেলে অসুস্থ হয়ে পড়ে যাবে। দাঁতের ব্যথা  উঠলে কোন কিছুই ভালো লাগেনা ।  প্রিয় ভাই ও বোনেরা দাঁতের ব্যথা  ভালো হওয়ার সহজ কিছু উপায় আমাদের এই সাইটে তুলে ধরা হয়েছে আপনার নিয়মিত মেনে চললে আপনার দাঁতের ব্যথা আর উঠবে না ।

দাঁতের সমস্যার কোনো বয়স নেই। পাঁচ বছরের শিশু থেকে শুরু করে ৬০ বছরের বৃদ্ধেরও এ ব্যথা হতে পারে। দাঁতের গোড়া বা স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হলে মারাত্মক যন্ত্রণা হয়। ব্যথা থেকে মাথা, চোখব্যথাও শুরু হয়ে যায়। কিছু ঘরোয়া উপায় আছে, যা অবলম্বন করলে দাঁতের ব্যথা থেকে অনেকটাই মুক্তি মেলে। ১. এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে ১ টেবিল চামুচ লবণ মিশিয়ে মুখে নিয়ে ১ মিনিট রাখুন।

এভাবে দিনে তিনবার কুলি করলে করুন ব্যথা কমে যায়। ২. ১ টেবিল চামুচ লবণ অল্প সরিষার তেলের সঙ্গে অথবা লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে মাড়িতে ম্যাসাজ করুন কয়েক মিনিট। তার পর কুসুম গরম পানি দিয়ে কুলি করে নিন। এভাবে ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হবে। ৩. রসুন ঘরোয়া অ্যান্টিবায়োটিক। রসুন দাঁতে তৈরি হওয়া ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে ও ব্যথা উপশমেও সহায়ক।

একটি-দুটি রসুনের কোয়া নিয়ে থেঁতলে সামান্য লবণ মিশিয়ে ব্যথার জায়গায় লাগান। রসুন চিবিয়েও খেতে পারেন। যন্ত্রণা কম না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন লাগাতে পারেন। ৪. অ্যালোভেরায় থাকে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান, যা দাঁতের জীবাণুকে নষ্ট করে দেয়। অ্যালোভেরা জেল নিয়ে ব্যথার জায়গায় লাগাতে পারেন। ৫. কমানোর করার জন্য হাইড্রোজেন পার অক্সাইড দারুণ কাজ করে।

এটি দাঁতে থাকা ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলে। এ ছাড়া দাঁতের যন্ত্রণা থেকে দ্রুত মুক্তি দেয়, মাড়ি থেকে রক্তপড়াও আটকায় হাইড্রোজেন পার অক্সাইড। পানি ও হাইড্রোজেন পার অক্সাইড সমপরিমাণ নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। ওই মিশ্রণ দিয়ে কুলকুচি করুন। তবে কোনোভাবেই গিলে ফেলা যাবে না। কুলকুচির পর পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে নিন। তবে দাঁতে অতিরিক্ত ব্যথা হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.