ক্রিকেট

88 রানে বাংলাদেশ জিতলো ২০২২

আফগানিস্তানকে ৮৮ রানে হারিয়ে বাংলাদেশের সিরিজ জয়

 

আফগানিস্তানকে ৮৮ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ১ ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। লিটন দাসের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি ও মুশফিকুর রহিমের অসাধারণ ব্যাটিংয়ের পর বোলিং অ্যাটাকের সম্মিলিত সাফল্যে আফগানিস্তানকে ৪৫.১ ওভারে ২১৮ রানে অল আউট করে দেয় তামিম ইকবা

 সবার আগে তিন অঙ্কের ‘ম্যাজিক ফিগারে’ পৌঁছে গেল বাংলাদেশ  রুশ সেনাদের আনাগোনা দেখা গেছে  ৮৮ রানে জয় বাংলাদেশের  ওয়ানডেতে নিজের পঞ্চম শতক তুলে নিলেন লিটন  কিয়েভে ভোর হতে না হতেই আবার দুটি বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে  সরকারি ছুটির দিনেও সারা দেশে করোনার টিকাদান কেন্দ্র খোলা থাকবে এবং টিকাদান কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর  প্রয়োজনে ইউক্রেনে রুশ অভিযানে বেলারুশের সেনারাও  এই জয় যে বিশ্বাস করা কঠিন  নির্বাচন কমিশন গঠনে ১০ জনের নাম চূড়ান্ত করেছে কমিটি  সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহারসংক্রান্ত

 

স্বাগতম!

প্রথম ওয়ানডেতে ৪ উইকেটের অবিশ্বাস্য জয়ের পর আজ দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আফগানিস্তানের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আজই কি সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে পারবে তামিম ইকবালের দল?

 

আফগানিস্তানের জন্য ম্যাচটা সিরিজে ফেরার লড়াই। প্রথম ম্যাচে ২১৫ রান তুলে ৭.৪ ওভারের মধ্যে বাংলাদেশের ৫ (২৮ রান) উইকেট তুলে নেওয়ার পরও জিততে পারেনি আফগানিস্তান। আফিফ হোসেন–মেহেদী হাসান মিরাজের অবিশ্বাস্য ১৭৪ রানের জুটিতে ম্যাচটা জিতে নেয় বাংলাদেশ।

 

টস জিতল বাংলাদেশ

এই মাত্র টস হয়ে গেল। টস জিতেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল। আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

 

আফগানিস্তান অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ জানালেন, তিনি টস জিতলে আগে বল করতেন।

 

বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের জন্য ৩০৭ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে আফগানিস্তান। সরাসরি থ্রোতে দারুণ রান আউট করে ওপেনার রিয়াজ হাসানকে ব্যক্তিগত ১ রানেই সাজঘরে পথ দেখান প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের অসাধারণ জয়ের নায়ক আফিফ হোসেন। এরপর আফগান অধিনায়ক হাসমাতুল্লাহ শহিদিকে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিতে বাধ্য করেন বাঁহাতি পেসার শরিফুল ইসলাম। আজমাতুল্লাহ ওমারজাই ডাউন দ্য উইকেটে গিয়ে সাকিব আল হাসানকে তুলে মারতে গিয়ে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়ে ফিরে যান প্যাভিলিয়নে।

 

আরও পড়ুন: হেলিকপ্টারে বর এসে বউ না নিয়েই ফিরে গেলেন

 

৩৪ রানের মধ্যেই ৩ উইকেট হারিয়ে সিরিজে ফিরে আসার লড়াইয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় হাসমাতুল্লাহ শহিদির দল। এরপর রাহমাত শাহ ও নাজিবুল্লাহ জাদরানের ব্যাটে ভালোই লড়ছিল আফগানরা। এই দুই ব্যাটারের জুটিতে ৯০ বলে আসে ৮৯ রান। দ্রুত গতিতে রান তোলার এই ধারা ব্যাহত হয় দ্বিতীয় স্পেলে তাসকিন আহমেদ বোলিংয়ে এলে। প্রথমে ৭১ বলে ৫২ রান করা ওপেনার রাহমাত শাহকে সরাসরি বোল্ড করেন তাসকিন। এরপর রান রেটের হিসেবে আফগানিস্তানকে ভালোভাবেই ম্যাচে ধরে রাখা নাজিবুল্লাহ জাদরানকে সাজঘরে ফেরান বাড়তি পেস ও বাউন্সের দারুণ এক ডেলিভারিতে।

 

মূলত ক্রিজে থিতু হয়ে যাওয়া এই দুই ব্যাটারের উইকেট নিয়েই ম্যাচে বাংলাদেশের আধিপত্য ফিরিয়ে আনেন তাসকিন। এরপর রাহমানুল্লাহ গুরবাজকে বোল্ড করে দ্বিতীয় উইকেট লাভ করেন সাকিব আল হাসান। ৩২ রান করা মোহাম্মদ নবিকে আউট করে আফগানদের কাজ আরও দুরূহ করে দিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। এরপর টেল এন্ডারদের লড়াই আর চলে বেশি সময়। বাংলাদেশের পক্ষে তাসকিন ও সাকিব আল হাসান নেন দুটি করে উইকেট। এছাড়া মোস্তাফিজ, শরিফুল, মিরাজ, মাহমুদউল্লাহ ও আফিফ নেন ১টি উইকেট।

 

এর আগে, লিটন দাসের ১৩৬ এবং মুশফিকুর রহিমের ৮৬ রানের ওপর ভর করে ৫০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩০৬ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়ে বাংলাদেশ। অনবদ্য সেঞ্চুরির জন্য ম্যাচ সেরা হন লিটন দাস।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.