হাসপাতাল

ভারতের সেরা প্রাইভেট হাসপাতাল? ভারতের সেরা ৫ টি হাসপাতাল- razuaman.com

ভারতের সেরা প্রাইভেট হাসপাতাল? ভারতের সেরা ৫ টি হাসপাতাল?

🇧🇩🇧🇩🇧🇩🇧🇩razuaman.com🇧🇩🇧🇩🇧🇩🇧🇩

হাই বন্ধুরা আপনারা সবাই ভাল আছেন আশা করি। তো বন্ধুরা আজকে আমি আপনাদের সামনে যে বিষয়ে কথা বলব সে বিষয় হচ্ছে, সারা পৃথিবীতে অনেক গুলো সেরা সেরা হাসপাতাল আছে। তার মধ্যে ভারতে বেশ কয়েকটি হসপিটাল রয়েছে। সেসব হসপিটাল নিয়ে আমি কিছু আপনাদের সামনে উপস্থাপন করবো।

তো বন্ধুরা ভারতের সেরা পাঁচটি হাসপাতালে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব কারণ আমাদের দেশে বাংলাদেশ ,পাকিস্তান,শ্রীলঙ্কা,নেপাল,ভুটান বেশ কয়েকটি দেশ চিকিৎসা ক্ষেত্রে জন্য ভারতে চিকিৎসা প্রদান করে আসি। কিন্তু ভারতে কোথায় ভালো হাসপাতাল রয়েছে কোথায় প্রাইভেট হাসপাতাল রয়েছে এসব বিষয়ে আমি আপনাদের সামনে আলোচনা করব। তো বন্ধুরা চলুন শুরু করা যাক- ভারতের সেরা পাঁচটি হাসপাতালে কথা।

ভারত জ্ঞান বিজ্ঞান চর্চায় যেমনই হয়েছে, তেমনি চিকিৎসা ব্যবস্থায় তারা বেশ উন্নতি করেছে। দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলে ভারতীয় চিকিৎসাব্যবস্থার সবচেয়ে উপরের দিকে অবস্থান করছে 1.33 বিলিয়ন জনসংখ্যা বৃদ্ধি। এখনও হচ্ছে দেশের সর্বস্তরের চিকিৎসাব্যবস্থা পৌঁছে দেওয়ার জন্য বর্তমান ভারতে অনেক সরকারি হাসপাতাল রয়েছে।

মাত্র 2% ডক্টর গ্রামীণ অঞ্চলে তাদের সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। সারা ভারত জুড়ে রয়েছে অসংখ্য বেসরকারি হাসপাতাল প্রতিটি হাসপাতালেই কোন না কোন ভাবে তাদের সেবার মান উন্নতি করার জন্য প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। আজকে আমরা ভারতের সেরা পাঁচটি প্রাইভেট হাসপাতাল নিয়ে কথা বলবঃ-

স্যার গঙ্গ রাম হাসপাতাল নিউ দিল্লিঃ-

স্যার গঙ্গ রাম হাসপাতাল ১৯২১ সালে পাকিস্তানের লাহোরে স্যার গঙ্গ রাম হাসপাতাল প্রথম তার হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠা করেন। এরপর ১৯৪৭ সালের দেশ বিভাগের পর তিনি ভারতের দিল্লিতে আরো একটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করেন। যার নাম হয় স্যার গঙ্গ রাম হাসপাতাল ।

বর্তমান আধুনিক ভারতের চিকিৎসা বিজ্ঞান বিভাগের সবচেয়ে বড় অংশিদার হচ্ছে স্যার গঙ্গ রাম হাসপাতাল ।আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের ফ্যাক্টরি তারা তাদের সেবা প্রদান করে আসছে। ভারতের উচ্চবিলাসী চিকিৎসা ক্ষেত্রে এই হাসপাতালের রোগীদের জটিল এবং কঠিন রোগের চিকিৎসা সেবা প্রদান করে থাকে।

সারা ভারত জুড়ে এটিই একমাত্র প্রাইভেট হাসপাতাল। যেটি অত্যন্ত গরীব রোগীদের বিনা খরচে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে আসছে। দিল্লির রাজধানী অবস্থিতি হাসপাতালটি বর্তমানে ৭৫৭ ব্যাট হাসপাতাল।

এপোলো হসপিটাল ভারতঃ-

এপোলো হসপিটাল ভারতের চেন্নাই এর চেইন বেস্ট হসপিটাল। এপোলো হসপিটাল এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড যাদের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন ভাবে শাখা পরিচালনা করে আসছে। যার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ এবং মেডেলিস্ট অনেকগুলো দেশ। ১৯৩০ সালে সর্বপ্রথম হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই হাসপাতালটির সুনামের সহিত সভা পরিচালনা করে আসছে। সারা ভারত জুড়ে হাসপাতালটি বর্তমানে বিভিন্ন সেক্টরে তাদের সেবা প্রদান করে আসছে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেঃ- হার্ড, অর্থোপেডিক্স, নিউরোলজি, নেফ্রলজি, গ্যাস্ট্রোলজি, ক্যান্সার, ট্রানস্প্লান্ট, আইসিইউ, ইমারজেন্সি, প্রিভেন্টিভ, মেডিসিন, রোবটিক্স, বেরিয়াট্রিক, সার্জারি, নিউরোলজি, সহ আরো অনেক ক্ষেত্রেই তারা তাদের সেবা প্রদান করে আসছে। ভারতের গিয়ে তারা তাদের সেবা প্রদান করে আসছে বাংলাদেশীরা।

টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতাল সেন্টারঃ-

টাটা মেমোরিয়াল সেন্টার আধুনিক ভারতের সর্বাঙ্গে যেমন টাটা জড়িয়ে আছে, তেমনি চিকিৎসা। বিশ্ব বিখ্যাত এই গ্রুপ অফ কোম্পানি টাটা মেমোরিয়াল সেন্টার এর বিশেষত্ব হচ্ছে। এটা সবচেয়ে বেশি কাজ করে ক্যান্সার, ট্রিটমেন্ট নিয়ে এবং এডভান্স সেন্টার ফর ট্রিটমেন্ট ইন ক্যান্সার সিটি সেন্টারের অন্যতম ।

প্রধান সদস্য ২০৪ গ্রুপটি টাটা ট্রাস্ট এর আন্ডারে ১৯৪১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি সর্বপ্রথম টাটা মেমোরিয়াল সেন্টার যাত্রা শুরু করে। দক্ষিণ এশিয়ায় তাই একমাত্র হাসপাতাল যেখানে প্রায় ৩০,০০০ ক্যান্সার রোগী প্রতিবছর যাতায়াত করে। শুধুমাত্র চিকিৎসা নেওয়ার জন্য এসব রোগীদের বেশিরভাগ অংশই ভারত এবং ভারতের পার্শ্ববর্তী দেশ যেমনঃ- বাংলাদেশ,শ্রীলঙ্কা,নেপাল,ভুটান এর মত দেশ থেকে আসা।

২০০৩ সালের পর থেকে আজ পর্যন্ত টাটা মেমোরিয়াল সেন্টারে প্রতিবছর ২০,০০০ নতুন রোগী রেজিস্ট্রেশন করেছেন। এবং ৮৫০০ মেজর অপারেশন পরিচালনা করে আসছেন ভারতীয় ইতিহাসে অনন্য রেকর্ড ও বটে।

ককিলাবেন হাসপাতালঃ-

ককিলাবেন হস্পিতাল ককিলাবেন হস্পিতাল এর অফিশিয়াল নাম হচ্ছে ককিলাবেন ধিরুভাই আম্বানি হসপিটাল। ভারতের বিখ্যাত রিলায়েন্স গ্রুপ অফ ইন্ডাস্ট্রিজ এর মালিক দুবাই আম্বানি সর্বপ্রথম কোকিলাবেন হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৯৯ সালে হাসপাতালটির অবস্থান মুম্বাইয়ের আন্ধেরির এক হাসপাতালে নামকরণ করা হয়।

ধীরুভাই আম্বানির ওয়াইফ অনিল আম্বানি মুকেশ আম্বানির মেয়ের নাম অনুসারে হাসপাতাল রয়েছে। ৭৫০ টি বেড হাসপাতাল কি প্রথমবারের মতো মাল্টি স্পেশালিস্ট হাসপাতাল বলেছেন। ভারতের প্রথম যাত্রা শুরু করা কোন হাসপাতালে নাম ছিল কোকিলাবেন হাসপাতাল। হাসপাতাল নিয়ে বিভিন্ন ধরনের বিতর্ক থাকলেও ২০০৩ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত বেরিয়ে ২০০৯ সালে সর্বপ্রথম তারা তাদের যাত্রা করতে সক্ষম হয়।

 

লীলাবতী হসপিটাল এন্ড রিসার্চ সেন্টারঃ-

লীলাবতী হসপিটাল এন্ড রিসার্চ সেন্টার ১৯৭৮ সালে লীলাবতী কীর্তিলতা মেডিকেল স্টোর অন্ধেরি সর্বপ্রথম লীলাবতী হসপিটাল এন্ড রিসার্চ সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান অবস্থা হচ্ছে মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় লীলাবতী। হাসপাতালে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে তাদের সেবা প্রদান করে আসছে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে

কার্ডিওলজিস্ট,মেডিসিন,ডার্মাটোলজি,গ্যাস্ট্রোএন্ট্রোলজি,এন্ডোক্রাইনোলজি,গ্যাস্ট্রোলজি,নিউরোলজি, সাইন্স প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমান ভারতের বিখ্যাত যতগুলো হাসপাতাল রয়েছে এবং রিসার্চ সেন্টার রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম এবং সবার উপরের দিকে অবস্থান করা একটি হাসপাতালের নাম হচ্ছে লীলাবতী হসপিটাল এন্ড রিসার্চ সেন্টার।

হাসপাতাল গুলোর নাম উল্লেখ করা হয়েছে হয়তো সেটা আপনার মতামতের সাথে নাও মিলতে পারে। কিন্তু বিভিন্ন ধরনের সরকারি হাসপাতালের নাম সর্বোচ্চভাবে উল্লেখ করা হয়েছে। পোষ্টি সম্পর্কে আপনার মতামত জানান এবং আপনার যত কথা আছে সবই আমাকে কমেন্ট বক্সে পাঠিয়ে দিন।

তো বন্ধুরা আজকে এই পর্যন্তই সকলে ভাল থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।

ধন্যবাদ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.