ভোটার আইডি

ভোটার আইডি কার্ড চেক কিভাবে করবেন | Voter ID Card Check in Online

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা আপনারা সবাই কেমন আছেন আশা করি আপনারা ভালো আছেন । আপনারা যারা নতুন ভোটার হয়েছেন এবং অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে চান তাদের জন্য আজকের পোস্টটি । অনেক সময় ভোটার আইডি কার্ড পেতে তিন থেকে চার পাঁচ মাস লেগে থাকে । তার আগে যদি আপনাদের ভোটার আইডি কার্ডের খুবেই দরকার হয়ে থাকে তাহলে অনলাইনের মাধ্যমে আপনারা ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন । আপনার মোবাইলের মাধ্যমেই আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন । আপনি আপনার মোবাইল ও কম্পিউটার দিয়ে আপনার ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে আমাদেরকে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারতেছেন না। তাই এই পোস্টটি যদি আপনি ভালো ভাবে ফলো করেন তাহলে অনেক সহজেই আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন, এবং ডাউনলোড করে সেভ করে রাখতে ও পারবেন।

ভোটার আইডি কার্ড চেক করুন অনলাইনে।

Voter id card check in online: আমরা অনলাইনে নতুন ভোটার হওয়ার জন্য একটি আবেদন ফরম পূরণ করে থাকি, এবং পরবর্তীতে এই আবেদন ফরম নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়ার পর আমাদের ফটো এবং ফিঙ্গার দিয়ে থাকে। এই সময় আমাদের কে একটি স্লিপ দেওয়া হয় যেখানে ৯ ডিজেটের একটি নাম্বার থাকে আমরা এই নাম্বারের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করব।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

প্রথমে আপনার মোবাইলের বা কম্পিউটারের যেকোনো একটি ব্রাউজার ওপেন করুন এবং গুগলে সার্চ করুন. NID Card Check, সর্ব প্রথম services.nidw.gov.bd এ ওয়েবসাইট আসবে সেই ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন। তখন নিচে দেওয়া পিকচারের মত হোম পেজ আপনার সামনে আসবে।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

NID Card চেক সার্চ করার পর ওয়েবসাইটের হোম পেইজে উপরের পিকচারের মত পেইজ ওপেন হবে এখানে ২ টি অপশন রয়েছে একটি হল ফর্ম নাম্বার এবং আরেকটি হল এন আইডি কার্ড নম্বরের মাধ্যমে, যেহেতু আমরা ভোটার আইডি কার্ড পায়নি তাই আমাদের কাছে এন আইডি কার্ডের নাম্বার নেই আমরা স্লিপ নাম্বার দিয়ে চেক করব।

ভোটার আইডি কার্ড চেক করার প্রথম ধাপ।

আপনারা ফরম নাম্বারের নয় ডিজিটের স্লিপ নাম্বার প্রথম লাইনে বসাবেন, তার পর আপনার জন্ম তারিখ সঠিক ভাবে বসাবেন, এবং একটি কেপচার দেওয়া রয়েছে এটি দিয়ে ভোটার তথ্য দেখুনে ক্লিক করুন।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

উপরের পিকচারের যেভাবে সব তথ্য দেখতেছেন এভাবে আপনার ভোটার আইডি কার সকল তথ্য দেখতে পাবেন।

এবং এখানে আপনি আপনার এন আইডি কার্ডের নাম্বার দেখতে পাবেন এবং এটি সেইভ করে রাখেন পরবর্তীতে নাম্বার লাগবে।

দ্বীতিয় ধাপ

ফরম স্লিপ নাম্বার দিয়ে চেক করার আপনার এন আইডি কার্ডের নাম্বার পাবেন তার পরের ধাপে আপনি ওয়েবসাইটের উপরে লগ ইন এবং রেজিস্ট্রার লেখা রয়েছে যেকোনো একটিতে ক্লিক করবেন।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

তৃতীয় ধাপ:

রেজিস্ট্রার বটমে ক্লিক করার পর আপনি নিচে দেওয়া পিকচারের মত ওয়েব পেইজ ওপেন হবে সেখানে ক্লিক করুন।

চতুর্থ ধাপ:

এই ধাপে আপনার এন আইডি কার্ডের নাম্বার দিবেন এবং জন্ম তারিখ সঠিক ভাবে বসাবেন তার নতুন কেপচারটি পরুন করে পরবর্তী ধাপে জানবেন।

পঞ্চম ধাপ: ভোটার আইডি কার্ড চেক

নাম্বার জন্ম তারিখ দেওয়ার পর এখন আপনার অ্যাকাউন্ট ইনফরমেশন দিবেন আপনার ভোটার এলাকার নাম জেলার নাম বিভাগের নাম সব কিছু ভোটার আইডি কার্ডে যেভাবে দেওয়া রয়েছে ঠিক সেভাবেই দিবেন ভুল হলে আপনার রেজিস্ট্রেশন হবে না তাই সঠিক ভাবে বসাবেন।

এই ধাপে আপনার মোবাইল নাম্বার ভিরিফাই করতে হবে আপনি ভোটার ফরম দেওয়ার সময় যে মোবাইল নাম্বার দিয়েছেন এই পেইজটিতে নাম্বারটি সো হবে আপনি চাইলে চেইন্জ অপশনে ক্লিক করে চেঞ্জ ও করতে পারবেন। কোডের জন্য ক্লিক করবেন আপনার ফোনে একটি কোড আসবে এই কোডটি এখানে বসাবেন এবং পরবর্তী ধাপের জন্য ক্লিক করবেন।

নাম্বার ভিরিফাই শেষ হওয়ার আপনার সামনে আপনার ‌‌‌প্রফাইল পিকচার সো হবে এবং এখানে একটি পাসওয়ার্ড সেটাপ করতে বলবে চাইলে আপনি পাসওয়ার্ড করতে ও পারেন আবার চাইলে না দিয়ে আপনি সামনের ধাপে যেতে পারবেন, পাসওয়ার্ড সেটাপ করলে লাভ এটিই যে আপনি পরবর্তিতে যদি আপনি আবার আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে চান বা ডাউনলোড করতে চান তাহলে অনেক সহজেই করতে পারবেন এটি।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করুন।

ভোটার আইডি কার্ড

কিভাবে ডাউনলোড করবেন ভোটার আইডি কার্ড

পরবর্তী স্টেপে আপনি যদি পাসওয়ার্ড সেটাপ করেন তাহলেত ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার এবং আপনার দেওয়া পাসওয়ার্ড দিয়ে পরের ধাপে যাবেন। আর যদি চান তাহলে এড়িয়ে যেতে ও পারেন, এই পেইজটিতে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের সকল তথ্য দেওয়া পাবেন এবং সাইটে আপনার আইডি কার্ডের ডাউনলোড অপশন ও দেখতে পাবেন, ডাউনলোডে ক্লিক করলে আপনার আইডি কার্ড ডাউনলোড হয়ে যাবে।

Voter ID Card Check

ডাউনলোড কমপ্লিট হওয়ার পর আপনি নিচের পিকচারের মত আপনার আইডি কার্ড দেখতে পাবেন।ভোটার

এখন‌ আপনি এই কার্ডের মাধ্যমে আপনার সকল কাজ করতে পারবেন। চাইলে আপনি প্রিন্ট করে আপনার যে সব কাজে প্রয়োজন আপনি ব্যবহার করতে পারবেন।

কোন কিছু না বুঝে থাকলে কমেন্ট করবেন আপনাকে বুঝিয়ে দেওয়া হবে এবং সবাই ভালো থাকবেন এবং পোস্টটি শেয়ার করবেন। রাজু aman.com এর পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে স্বাগতম , ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.