স্বাস্থ্য

মাসিক হওয়াটা সুস্বাস্থ্যের লক্ষণ? দাম সহ জেনে নিন মাসিক হওয়ার ট্যাবলেট

আসলে ১২ বছর থেকে ৫৫ বছর বয়সী নারীদের ক্ষেত্রে এমনটিই  হয়ে থাকে।  আর প্রাপ্তবয়স্ক একজন নারীর নিয়মিত ও সময় মতো মাসিক হওয়াটা সুস্বাস্থ্যের লক্ষণ।  আর তবে তা যদি  এটি অনিয়মিত হয়ে পড়ে,তবে  তার মানে হয়তো শারীরিক কোনো সমস্যা আছে বলে মনে করতে হবে।

আসলে নির্ধারিত সময়ের থেকে, অর্থাৎ ঠিক ২৮ দিনের গ্যাপে যদি কারো  মাসিক না হয়, তবে  অনেক নারীরা চিন্তা করে থাকে।অনেক নারীরা আবার মাসিক হওয়ার ট্যাবলেটের

ওষুধের  নাম খুঁজে খুঁজে হয়রান হয়ে থাকে । কারণ সত্যিকার অর্থেই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মাসিক না হওয়া আতঙ্কিত হওয়ার মত একটি গুরুতর বিষয় হয়ে পরে ।  আবার সময়মত মাসিক না হলে এর জন্য প্রয়োজনীয় মাসিক হওয়ার ট্যাবলেট এর নাম কি এবং এর প্রতিকার সম্পর্কে আজ আমরা জানবো।


বেশিরভাগ মহিলাই অনিয়মিত পিরিয়ডের চিন্তায় ভয় পান। একটি স্বাভাবিক মাসিক চক্র 28 দিন, প্লাস বা মাইনাস সাত দিন স্থায়ী হয়। মাসিকের রক্তপাত অনিয়মিত বলে মনে করা হয় যদি এটি প্রতি 21 দিনের বেশি ঘন ঘন হয় বা 8 দিনের বেশি সময়ের জন্য স্থায়ী হয়।

অনিয়মিত পিরিয়ডের সমস্যার সম্মুখীন হওয়া সত্ত্বেও, অনেক মহিলা এটি প্রকাশ্যে মোকাবেলা করেন না। অনিয়মিত পিরিয়ড পেট ব্যথা, ক্লান্তি, মাথাব্যাথা ইত্যাদি অন্যান্য সমস্যার সূচনা করে।


অনিয়মিত পিরিয়ডের সমস্যা কমাতে এই নিবন্ধটি আপনাকে এমন কিছু টিপস দেবে যা আপনি আপনার দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োগ করতে পারেন।


অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্যের অবস্থার জন্য চিকিত্সা পান: অনেক সময়, অনিয়মিত পিরিয়ড থাইরয়েড, পিসিওডি, স্থূলতা ইত্যাদির মতো অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্যের কারণে হয়ে থাকে।

মানসিক চাপ:

মানসিক চাপ কেবল একজন ব্যক্তিকেই মানসিকভাবে প্রভাবিত করে না বরং তার শরীরেও প্রভাব ফেলে। মানসিক চাপের কারণে শরীরে হরমোনের মাত্রা পরিবর্তিত হয় যার ফলে অস্বাভাবিক পিরিয়ড হয়। সর্বদা নিশ্চিত করুন যে আপনি নিজের জন্য সময় বের করেন এবং অবসর ক্রিয়াকলাপে লিপ্ত হন।

জীবনধারা পরিবর্তন করুন:

একটি সুষম এবং পুষ্টিকর খাদ্য, নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম এবং একটি ভাল রাতের ঘুম অনিয়মিত পিরিয়ড মোকাবেলায় অনেক দূর এগিয়ে যায়। একটি সুষম খাদ্য নিশ্চিত করে যে আপনার শরীর প্রয়োজনীয় পুষ্টি পায় এবং শারীরিক ব্যায়ামে লিপ্ত হলে শরীরে অক্সিজেনের প্রবাহ বৃদ্ধি পায়।

অবহিত হোন:

আপনার অবস্থা সম্পর্কে আপনি যত বেশি জানেন, ততই আপনি এটি পরিচালনা করতে সক্ষম হবেন। অতএব, আপনার অনিয়মিত পিরিয়ডগুলি কী ট্রিগার করে তা জানা গুরুত্বপূর্ণ এবং সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নিন।


একজন বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলুন: যদি আপনি আপনার মাসিক চক্রের গুরুতর অস্বাভাবিকতা লক্ষ্য করেন, তাহলে একজন স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করা ভাল কারণ তিনি আপনাকে আপনার অবস্থার কারণ এবং পরিণতিগুলি আরও বিস্তারিতভাবে বুঝতে পারবেন।

যাদের অতিরিক্ত রক্তস্রাব হয় তাদের ক্ষেত্রে :-

মাসিক চক্রের বা মাসিক শুরুর দিকে প্রথমদিন ধরতে হবে সেভাবে আপনাকে১৯তম দিন থেকে ২৬তম দিন পর্যন্ত একটা করে ট্যাবলেট দিনে ২থেকে ৩বার সেবন করতে হবে ।

আরও জানতে:-

এই ট্যাবলেট এর ব্যবহার ৪ থেকে ৬মাস পর্যন্ত প্রয়োজনে করা যেতে পারে যদি আপনাকে ডাক্তার পরামর্শ দেন ।

প্রতি নির্দেশনা :-

গর্ভাবস্থায়
যাদের লিভারে কার্যকারিতা মারাত্মক সমস্যা আছে তাদের ক্ষেত্রে
ডাবলিন জনসন সিনড্রোম
রোটর সিনড্রোম
লিভার টিউমার ছিল বা বর্তমানে আছে
বর্তমান সিম্বলিক প্রক্রিয়া
নর্থ ইস্টার্ন বা এর যে কোন উপাদানের প্রতি অতিসংবেদনশীলতা
নরমেন্স ট্যাবলেট একটি নরইথিস্তেরন যার প্রোজেস্টেরনের মত প্রোজেস্টেরনল কার্যকারিতা আছে ।

কিন্তু ইহার একটি শক্তিশালী ডিম্বস্ফোটন বাধাদানকারী এবং দুর্বল ইস্ট্রোজেন এবং অ্যান্ড্রোজেনিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে ইহা মাসিক চক্রের বিভিন্ন ধরনের সমস্যার চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয় নরইথিস্তেরন ইনস্ট্রাক্ট থেকে শোষিত হয় এবং এর প্রভাব কমপক্ষে ২৪ ঘন্টা থাকে এর মাধ্যমে নিষ্কাশিত হয় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.