বিমানবন্দরের

লেজার লাইট নিক্ষেপ বন্ধে মুঠোফোনে পাঠানো হবে খুদে বার্তা! | Lazer Light on Airplane

বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ক্যাপ্টেন মাহবুব সময় সংবাদকে বলেন, হঠাৎ চোখে লেজার রশ্মি পড়লে চোখে ঝাপসা দেখেন পাইলটরা। হাত দিয়ে ওই আলো থেকে চোখ বাঁচানোর চেষ্টা করেন। ককপিটে দুজন থাকলে কোনোরকমে ম্যানেজ করে নেন। কিন্তু এতে পাইলটদের খুব সমস্যা হয়। উড্ডয়ন ও অবতরণের সময় সরাসরি চোখে লেজার রশ্মি পড়লে দুর্ঘটনার শঙ্কা থাকে।


লেজার লাইলেজার রশ্নির উৎপাত কিছুতে থামছেনা। লেজার লাইটের কারনে সন্ধ্যার পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান উঠানামার সময় সমস্যায় পড়ছেন পাইলটরা। বিমান টার্গেট করে লেজার রশ্নি নিক্ষেপ বন্ধে এবার ভিন্ন পথ অবলম্বনের কথা ভাবছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ- বেবিচক। সচেতনতামূলক কর্মসূচির অংশ হিসাব মুঠোফোনে খুদে বার্তা পাঠানোর পরিকল্পনার করা হচ্ছে বলে জানান বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ারভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান।


বিমান টার্গেট করে লেজার রশ্নি নিক্ষেপ বন্ধে এর আগেও আমরা গণমাধ্যমে সচেতনামূলক বিজ্ঞপ্তি প্রচার করেছি। বিমানে লেজার রশ্মি নিক্ষেপ শাস্তিযোগ্য অপরাধ, তাই নিরাপদে বিমান উড্ডয়ন অবতরণ নিশ্চিত করতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হয়। বিভিন্ন থানায় চিঠি দিয়ে লেজার লাইট নিক্ষেপকারীদের আইনের আওতায় আনতে চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এসব উদ্যোগেও কোনো কাজ হচ্ছে না। তাই মুঠোফোনে খুদেবার্তা পাঠিয়ে আমরা আহ্বান জানাব এটা খুব বিপজ্জনক।


সন্ধ্যার পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান ওঠা নামার সময় সমস্যায় পড়ছেন পাইলটরা এবার টার্গেট করে লেজার রশ্মির মধ্যে এবং ভিন্নপথ অবলম্বন এর কথা ভাবছেন নিয়ন্ত্রক সংস্থা । বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ বা সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে পাঠানো হবে খুদেবার্তা সিলেট বিভাগের মধ্যে এর আগেও গণমাধ্যমে সচেতনতামূলক বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয়।


লেজার রশ্মির নিক্ষেপ শাস্তিযোগ্য অপরাধ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিপ্রচার করা হয়। বিভিন্ন থানায় চিঠি দিয়ে লেজার লাইট নিক্ষেপকারীদের আইনের আওতায় আনতে অতিথিদের সংস্থাটি কিন্তু কোনো কাজ হচ্ছেনা । অনেকের চোখে চোখে ঝাপসা দেখেন তারা হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন দুজন থাকলে ম্যানেজ করে দেন । অথবা সরাসরি চোখের লেজার রশ্মি দুর্ঘটনার আশঙ্কা থাকে


তিনি বলেন, বিমান উড্ডয়নের পর ঢাকার দক্ষিণ পশ্চিমে গুলশান, বনানী, পুরান ঢাকা ও মোহাম্মদপুর এলাকা অতিক্রম করার সময় বেশি লেজার অ্যাটাক হয়। সন্ধ্যার পর থেকে শুরু হয় এই অ্যাটাক। এমনকি মধ্যরাতেও বিমান তাক করে লেজার লাইট নিক্ষেপ করা হয়। এক্ষেত্রে এলাকাভিত্তিক সচেতনতামূলক কমর্সূচি নেওয়ার কথা বলেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.