স্বাস্থ্য

ল্যাকটোজেন ১ খাওয়ার নিয়ম – razuaman.com

ল্যাকটোজেন ১ খাওয়ার নিয়ম – razuaman.com

বর্ণনা

ল্যাকটোজেন ১ হল একটি স্প্রে-ড্রাইড ফরমুলা যা শিশুর জন্মের পর থেকেই খাওয়ানো যায়। শিশু জন্মের পর পর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে শুরু করে বড় বড় যত শীর্ষস্থানীয় মেডিকেল ও স্বাস্থ্য সমিতি রয়েছে সকলের মতেই এক মাত্র মায়ের বুকেরই দুধই শিশুর জন্য সবচেয়ে ভালো এবং প্রাকৃতিক খাবার। তারপরও কোন শিশু যদি পর্যাপ্ত পরিমাণ মায়ের দুধ খেতে না পারে বা মায়ের দুধ থেকে বঞ্চিত হয় তাহলে সে সকল শিশুর জন্য স্বাস্থ্য কর্মীর পরামর্শ অনুযায়ী আলাদা ভাবে খাবারের ব্যবস্থা করা উচিত।

 

সেটা অবশ্যই শিশুর জন্য উপযুক্ত ও সঠিক পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ হওয়া অত্যন্ত জরুরী। এমনি একটি খাবার হলো ল্যাক্টোজেন ১। যেটি শিশুর বয়স ছয় মাস হওয়ার আগ পর্যন্ত খাওয়ানো যেতে পারে। এই সময় অনেকেই অনেক খাবার শিশুকে খাওয়ানোর কথা বলতে পারে তবে সবকিছু চাইলেই খাওয়ানো যাবে না। কারণ শিশু জন্মের প্রথম দিকে শিশুর পাচকতন্ত্রকে নতুন পরিবেশের সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়া দরকার এরজন্য মায়ের বুকের দুধ ব্যতিত কিছু খাওয়াতে হলে অবশ্যই অনেক সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে এমন কি স্বাস্থ্য সংস্থা কতৃত স্বীকৃত ল্যাক্টোজেন-১ খাওয়ানোর আগেও স্বাস্থ্যকর্মীর পরামর্শ প্রয়োজন।

 

ল্যাক্টোজেন-১ হলো শিশুর প্রথম দিক কার পুষ্টিগুণ বেড়ে উঠার জন্য উপযুক্ত যেসকল বিষয় থাকা দরকার তা সঠিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করে তৈরি একটি ফরমুলা। যাতে রয়েছে দুধে থাকা হুই প্রোটিন যা শিশুর স্বাস্থ্যের ও প্রথম দিকে বেড়ে উঠার জন্য প্রয়োজনীয় একটি উপাদান এবং এটি খুব সহজেই হজম হয়ে যায় যার ফলে শিশুর পাচকতন্ত্র খুব সহজেই মানিয়ে নিতে পারে। এটির সঠিক ব্যবহার ও পরিমাণের জন্য স্বাস্থ্য কর্মীর পরামর্শ অত্যন্ত জরুরী। কারণ আপনি যদি পরিমাণে কম বেশি করে ফেলেন তাহেল আপনার শিশুর জন্য এটি সমস্যার কারণ হতে পারে। তাই পরামর্শ ছাড়া এটির ব্যবহার আপনার শিশুর অতিরিক্ত কান্নাকাটি এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণ হতে পারে।

 

এছাড়াও এটি প্রস্তুত করার পূর্বেও আপনাকে বেশ সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে। ভালোভাবে হাত পরিষ্কার করা, গরম পানি ব্যবহার করা, কত সময় ধরে চুলায় রাখা, তারপর শিশুকে সঠিকভাবে খাওয়ানো ইত্যাদির জন্যও নিতে হবে পরামর্শ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.