শিক্ষা

১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলছে স্কুল-কলেজ/-razuaman.com

করোনার কারণে প্রায় দেড় ব্ছর ধরে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। অবশেষে আগামী সেপ্টেম্বর থেকে ধাপে ধাপে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে সরকার। এদিকে, আজ শুক্রবার সকালেদুই দিনের সফরেচাঁদপুরে যান শিক্ষামন্ত্রী। সেখানে দুপুর ১২ টায় সদর উপজেলার শাহ মাহমুদপুর ইউনিয়নের মহামায়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের উদ্বোধন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের একই তথ্যজানান মন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সর্বশেষ সিদ্ধান্তে ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার কথা বলা হয়েছিল। আমরা আশা করছি ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে পারব ইনশাআল্লাহ।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রথমে সিদ্ধান্ত হয়েছিল ১৮ বছরের উপরে যাদের বয়স তাদের করোনা টিকা দেওয়া হবে। পরবর্তীকালে সরকার ১২ বছরের ওপরে যাদের বয়স তাদেরও টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এখন তাদের বয়স অনুযায়ী ওই ধরনের টিকার ব্যবস্থা করছে সরকার।

এর আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে বৈঠক করে করোনাসংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। বৈঠকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পক্ষে মত দেয় কমিটি।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সহিদুল্লা বলেন, করোনা সংক্রমণ সর্বোচ্চ শনাক্ত থেকে ৭০ শতাংশ কমেছে। ধীরে ধীরে করোনার টিকাপ্রাপ্তি নিশ্চিত হচ্ছে। এ জন্য সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে এবং জনস্বাস্থ্যবিষয়ক বেশ কিছু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া সাপেক্ষে এখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া যায়।

একই দিন রাতে একটি বেসরকারি টেলিভিশনের এক অনুষ্ঠানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। ১২ সেপ্টেম্বর থেকেই ধাপে ধাপে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

ডা. দীপু মনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ব্যাপারে আমরা আবারও বসবো। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত সিন্ডিকেট ও একাডেমিক কাউন্সিল নেয়। তাঁদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি, তাঁরা চেয়েছেন অন্তত প্রত্যেক শিক্ষার্থীর যেন প্রথম ডোজ টিকা সম্পন্ন হয়। আমরা তখন বিশ্ববিদ্যালয় খোলার জন্য তারিখ নির্ধারণ করেছিলাম। এখন আবার তাদের সঙ্গে কথা বলবো অক্টোবরের মাঝামাঝি খুলে দেওয়া যায় কিনা। আর তারা যদি আগেও খুলতে চায় খুলতে পারেন।

বিষয়টি নিয়ে গতকাল জাতীয় সংসদ অধিবেশনেও কথা বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দ্রুতই স্কুল-কলেজ যাতে খুলে দেওয়া যায়, সে জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা খুব তাড়াতাড়ি স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার জন্য এরই মধ্যে নির্দেশ দিয়েছি।

জানা গেছে, ১২ সেপ্টেম্বর থেকে উচ্চ মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে মন্ত্রণালয় প্রস্তুত। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা আগামী ৫ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ১৫ অক্টোবরের পর এবং মেডিক্যাল কলেজগুলো ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে খোলারঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button